গান্ধীজির ১৫০ তম জন্মদিন পালন করে প্লাসটিক বর্জনের অঙ্গিকার নিয়ে রাজপথে নামলেন বিজ্ঞানীরা।

0
502

সুভাষ চন্দ্র দাশ, ক্যানিংঃ—মানব জীবনে প্লাসটিক জাতীয় পদার্থ এক ভয়াবহ বিভীষিকা।আর সেই প্লাসটিক জাতীয় পদার্থ বর্জ পদার্থ আগামীদিনে প্রাকৃতিক ও জীবকুল কে ধ্বংসের পথে এগিয়ে নিয়ে চলেছে প্লাসটিকের রমরমা ব্যবহার।আগামীদিনে ভংয়ঙ্কর পরিস্থির আগাম সতর্কবাতা থেকে সুরক্ষার জন্য প্লাসটিক বর্জন নিয়ে সচেতনতার জন্য রাজপথে পা মেলালে বিজ্ঞানীরা।বুধবার জাতীর জনক মহাত্মা গান্ধীর ১৫০ তম জন্ম বার্ষিকী পালনের মধ্যদিয়ে প্লাসটিক বর্জনের আহ্বান জানিয়ে সচেতনতার জন্য এক পদযাত্রা অভিযান শুরু করেন।এদিন দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার ক্যানিংয়ের “কেন্দ্রীয় মৃত্তিকা লবণাক্ত গবেষণাগার” এর একদল বিজ্ঞানী ডঃ ধীমান বর্মন,ডঃ উত্তম কুমার মন্ডল,ডঃ সুভাশীষ মন্ডল,ডঃ ক্ষীরেন্দ্র কুমার মহান্ত,ডঃ তাসি দর্জি লামা সহ সংস্থার অন্যান্য কর্মীরা ঝাড়ু হাতে ক্যানিং এলাকার বেশ কিছু জায়গা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে ব্লিচিং পাউডার ছড়িয়ে দিয়ে স্বচ্ছতা অভিযানে সামিল হন।পাশাপাশি সাধারণ মানুষজন থেকে পথচারীদের কে প্লাসটিকের অপকারিতা বিষয়ে সচেতন করেন।
কেন্দ্রীয় মৃত্তিকা লবণাক্ত গবেষণাগার এর প্রধান বিজ্ঞানী ও গবেষক ডঃ ধীমান বর্মন বলেন “প্লাসটিক মানব জীবনের এক বিভীষিকাময় অধ্যায়। এই মুহূর্তে প্লাসটিকের বিষয়ে আমরায সচেতন না হলে আগামী দিনে ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমাদের এবং প্রাকৃতিক পরিবেশ কে ধ্বংসের মুখে পড়তে হবে।ফলে পৃথিবীতে প্রাকৃতিক ও জীবকুল কে সুস্থভাবে বেঁচে থাকে হলে প্লাসটিক বর্জন করা অত্যন্ত জরুরী।স্বচ্ছ পরিবেশ ও প্লাসটিক মুক্ত পরিবেশ তৈরী জন্যই সাধারণ মানুষজনদের কে সচেতনতা করার জন্যই আমরা পথে নেমেছি। ”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here