পিয়াঁজ নিয়ে বচসা, গুরুতর জখম ২।

0
156

সুভাষ চন্দ্র দাশ, ক্যানিংঃ— বর্তমান বাজারে পিয়াঁজের দাম অগ্নিমূল্য হওয়ায় ছোট বড় হোটেল এবং রেষ্টুরেন্ট গুলিতে পিয়াঁজের আনাগোনা একেবারেই তলানিতে ঠেকেছে।রেষ্টুরেন্টে পিয়াঁজ চাইতে গিয়ে বচসায় দোকানদারের বেধড়ক মারধোরে গুরুতর জখম হলে তিনজন ক্রেতা খরিদ্দার।
ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার ক্যানিং থানার জয়দেব পল্লী এলাকায়।
স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে দশমীর রাতে জীবনতলা থানার পিয়ালী কলাড়িয়া এলাকা থেকে প্রতিমা দেখতে ক্যানিংয়ে গিয়েছিলেন পরিবারের লোকজন সহ বছর পঞ্চাশের শচীন্দ্র নাথ রায়।প্রতিমা দেখতে গিয়ে ক্যানিংয়ের জয়দেব পল্লী এলাকার একটি পুজোমন্ডপের সামনে চাউমিন খাওয়ার জন্য একটি রেষ্টরেন্ট এ যান।পিয়াঁজের দাম অগ্নিমূল্য হওয়ায় পিয়াঁজ ছাড়াই চাউমিন দেন দোকানদার পঞ্চা দাস।ক্রেতা শচীন্দ্র নাথ রায় ও তাঁর বছর সাতাশ বয়সের কন্যা সুরভী রায় চাউমিনে পিয়াঁজ দিতে বললে বচসা শুরু হয়।
অভিযোগ রাগে অগ্নিশর্মা হয়ে তরুনী সুরভী রায় কে চুলের মুঠি ধরে বেধড়ক মারধোর করে দোকানদার পঞ্চা দাস।মেয়েকে মারধোরের হাত থেকে বাঁচাতে গেলে শচীন্দ্র নাথ রায় কে রাস্তায় ফেলে হাতা-খুন্তি দিয়ে বেধড়ক মারধোর করে জনাকয়েক দোকানাদার। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে স্থানী কয়েকজন সহৃদয় লোকজন বাবা-মেয়েকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়।এ বিষয়ে আহতরা ক্যানিং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে ক্যানিং থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করলেও এখনও পর্যন্ত অভিযুক্ত কাউকে আটক বা গ্রেফতার করতে পারেনি।
অন্যদিকে শচীন্দ্র নাথ বাবু আঘাত গুরুতর হওয়ায় তার অবস্থা আলাঙ্কাজনক। বর্তমানে তিনি ক্যানিং মহকেহুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here