সব খবর দৈনিক পোর্টাল, একটি স্বপ্নের জন্ম : সন্দীপ দে।

0
1537

আজ ২৬ শে জানুয়ারি, প্রজাতন্ত্র দিবস। ভারতের স্বাধীনতার ইতিহাসের এক স্মরণীয় দিন। পাশাপাশি দিনটি একইভাবে স্মরনীয় আমার কাছে এই কারনে যে, আজকের দিনেই ‘সব খবর’ নিউজ পোর্টাল এর জন্ম হয়েছিল। ২০১৮ সালের ২৬ শে জানুয়ারি এই সব খবর নিউজ পোর্টাল-এর যে আত্মপ্রকাশ ঘটেছিলো গুটিগুটি পায়ে ।পথ চলতে চলতে আজ একটি বছর অতিক্রম করে ফেলল এই সব খবর নিউজ পোর্টাল। বর্তমানে সেই পোর্টাল আমাদের সকলের আন্তরিক প্রয়াস ও নিরলস পরিশ্রমের ফলস্বরূপ সকলের কাছে ধীরে ধীরে পরিচিত হয়ে উঠছে। তবে আজকের দিনে একটা কথা না বললে নয়! সব খবর নিউজ পোর্টাল কি এবং কেন এর আত্মপ্রকাশ? কিভাবে হল এই আত্মপ্রকাশ? এই নিউজ পোর্টালটির পিছনের ইতিহাস আজ আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছি। সব খবর নিউজ পোর্টালের এডিটর মিস্টার সুমন কুমার ভূঁইয়া কলকাতার একটি নামকরা জার্নালিজম সেন্টার থেকে জার্নালিজম কোর্স কমপ্লিট করেন ।তখন ওনার মাথায় আসে একটি চিন্তা যে, পরের অধীনে কাজ না করেও নিজে যদি একটা পোর্টাল এর সূচনা করা যায়। তাঁর লক্ষ্য ছিল নতুন কিছু করা, নতুন ভাবনায় এগিয়ে নিয়ে যাওয়া, শুধু  সমাজের খারাপ দিক গুলো নয়, পাশাপাশি যতটা সম্ভব ভালো কিছুকে তুলে ধরা সকলের সামনে। সমাজের ভালো ভালো দিক গুলো কে তুলে ধরে মানুষের মধ্যে বিশ্বাসকে জাগিয়ে দেওয়ার লক্ষে। সেই সময় সুমন ভূঞ্যার সেই মহৎ লক্ষের সঙ্গে সঙ্গ দিয়েছিল আরো একজন তরুন ছেলে, সদ্য সংবাদিকতা পাশ করা গৌরব ভদ্র।  নানান পরিকল্পনার মধ্য দিয়ে চলতে থাকে নতুন সৃষ্টির ভাবনা। কিন্তু পারিপার্শিক কতকগুলি অসুবিধার কারনে সেই সময় সুমনের সেই ভাবনা কার্যকরী হয়ে উঠতে পারেনি।
কিন্তু বিষয় হলো, সুমনের সঙ্গে আমার তখন কোন আলাপ ছিল না। আমিও ঐ সেন্টার থেকে জার্নালিজম এর কোর্স কম্প্লিট করি। এমতাবস্থায় ওই সেন্টারের একটি নিউজ পোর্টাল যাত্রা আরম্ভ করে। সেই নিউজ পোর্টালটির দায়িত্ব বর্তায় আমার ওপর।সালটা ২০১৭,১লা জানুয়ারি ,আমরা প্রাক্তন এবং নতুন স্টুডেন্টরা ওই সেন্টারের সাথে কোলাঘাটে আয়োজিত পিকনিক হাজির হই, আর সেখানে সুমন আর আমার দেখা হয়। কিন্তু আশ্চর্যের তার আগে পর্যন্ত আমরা কেউ কাউকে চিনতাম না, শুধু সুমন আমার দেখাই হয়েছিল কিন্তু কথা হয়ে উঠেনি। কিন্তু সুমন খোঁজ নিয়ে জেনেছিল যে ঐ সেন্টারের নিউজ পোর্টাল আমার হাত দিয়ে যাত্রা শুরু করেছে। এখানে মজার বিষয় হল যে সুমনও ঐ পোর্টালে আগে কাজ করত, কিন্তু যে কোন কারনেই হোক ঐ পোর্টালে আর নিজেকে যুক্ত রাখে নি। কিন্তু পরবর্তী কালে ও যখন দেখল যে আমি ঐ পোর্টলটির দ্বায়িত্ব নিয়েছি তখন ও ফোন নাম্বার জোগাড় করে আমায় ফোন করে এবং বলে আমি কিছু নিউজ দেবো ওইগুলো কি সাইটে এডিট করে দেওয়া যাবে? তখন আমি তার কথায় সম্মতি জানিয়ে ছিলাম। তারপর আস্তে আস্তে আমাদের দুজনের মধ্যে সম্পর্কের গভীরতা বাড়তে থাকবে। এমত অবস্থায় আমরা দুজনেই সেন্টারের নিউজ পোর্টালটির সিনিয়র সাব-এডিটর যাবে কাজ শুরু করি। এভাবে বেশ কয়েক মাস আমরা কাজ করে চলেছি। এমতাবস্থায় সুমন তার পরিকল্পনার কথা আমাকে জানায়, ততদিনে আমারও নিজের মতন করে নতুন কিছু করার তাগিদ তৈরি হতে শুরু করে দিয়েছিলো। তাই সেই ভাবনা, ব্যাস….আর পেছন ফিরে তাকাই নি। সালটা ২০১৮, ১৫ জানুয়ারি। আমি আর সুমন ছুটে যাই হাওড়া। সেখানে সুমনের পূর্ব পরিচিত এক বন্ধু ইন্দ্রনীল, যিনি বর্তমানে আইটি সেক্টরে কর্মরত। ইন্দ্রনীলকে আমরা হাওড়ায় ডেকে নিয়ে ব্রিজের তলায় দাঁড়িয়ে নিউজ পোর্টাল সম্পর্কে কথা বলি। কারণ ইন্দ্রনীল এর আগেও বেশ কয়েকটি নিউজ পোর্টাল তৈরি করেছেন। ইন্দ্রনীলের সাথে কথা বলি এবং ইন্দ্রনীল আমাদের কথা শুনে আমাদেরকে সঠিকভাবে গাইড করেন ও দ্রুত পোর্টালটি বানিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন। শুধু তাই নয় উনি তৈরির খরচ টুকু বাদে নিজের নুন্যতম পারিশ্রমিক টুকু না নিয়েই এটি তৈরি করে দেন। তাই সব খবর এর পক্ষ থেকে এবং আমার পক্ষ থেকে ইন্দ্রনীল কে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। এভাবেই সূচনা হলো সব খবরের বীজ বোনা। সেই ‘সব খবর’ ২০১৮ এর ২৬-শে জানুয়ারি আত্মপ্রকাশ। এমনই একটি দিন যা এক দিকে যেমন আনন্দের আমাদের কাছে, তেমনী ঐ দিন এক বেদনাঘন স্মৃতিকে উস্কে দেয়, কারন এই একই দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন কিংবদন্তী অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী তথা সকলের প্রিয় বেনু দি। কিন্তু পুরনো কে অতিক্রম করে সামনে দিকে এগিয়ে যেতে হয়, তাই আমরা সেদিনই ভারাক্রান্ত হৃদয় নিয়ে আমাদের যাত্রা সূচনা করেছিলাম। সেই দিন আমরা পাশে পেয়েছিলাম আরো একজন শর্ট ফিল্ম অভিনেতা, ডিরেক্টর ও সম্পাদক রাজকুমার দাস কে। তাঁর আন্তরিকতাও আমাদের চলার পথ্ কে সুগম করেছিল। এমনই ক্ষুদ্রপরিসরে ক্ষুদ্র সামর্থের মধ্য দিয়ে লড়াই করতে করতে আমি আর সুমন দুজনে নিয়মমাফিক নিউজ নিয়ে কাজ করতে থাকি। পাশাপাশি আমরা যোগাযোগ করি সর্বভারতীয় নিউজ প্ল্যাটফর্ম ডেলিহান্ট এর সাথে। যোগাযোগ করার পর বিভিন্ন রুলস এন্ড রেগুলেশান এর মধ্য দিয়ে আমরা দুটি মাস তাদের পর্যবেক্ষণে ছিলাম তারপর আমরা ডেলি হান্ট থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পর আরো আমাদের গতি বাড়িয়ে ফেলি। দুর্বার গতিতে মিস্টার সুমন ভূঞ্যার হাত ধরেই আজ ডেলিহান্টে ছুটে চলেছে সব খবর নিউজ পোর্টাল। গুটি গুটি পায়ে মহৎ প্রচেষ্টার দিকে। কবি সুকান্তের ভাষায় “ক্ষুদ্র আমি তুচ্ছ নয় যেন আমি ভাবি বনস্পতি”,এই ভাবে ধীরে ধীরে বনস্পতি হওয়ার দিকে এগিয়ে চলেছে আজ। এই নিউজ পোর্টালের যে সমস্ত সাংবাদিকরা এবং সাহিত্য জগতের যে সমস্ত নক্ষত্র কবি-লেখকরা তারা বিভিন্ন ক্ষেত্রে সব খবর কে উজ্জ্বল উপস্থিতি জানান দিয়েছেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে সব খবর এর সাথে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত থাকার কারণে আমি সব খবরের বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর্মরত সাংবাদিক থেকে শুরু করে কবি লেখকদের এবং যারা আমাদের রান্নাঘর নিয়ে লেখালেখি করেন সেই সমস্ত মানুষদের কে শ্রদ্ধা জানাই। আজ সমস্ত মানুষজন নিঃস্বার্থভাবে সব খবর কে আলোর পথে নিয়ে যাচ্ছেন সত্যই বর্তমান সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বর্তমান সময় সময়ে মানুষজন তাদের নিজ নিজ ও কর্মক্ষেত্রে তাদের কর্মকাণ্ড ঘটিয়েও যে আমাদেরকে এভাবে সাহায্য করে চলেছেন তা কোনোভাবেই প্রশংসা করে আমি ওদের ছোটো করতে পারিনা, তবু আমায় বলতেই হয় আজ সব খবর এর সাথে যুক্ত মানুষ জন রা একটি পরিবার। আমরা সকলেই একটি পরিবারের মতই দিনের-পর-দিন এভাবেই চলতে চাই। পাশাপাশি সব খবরের উদ্দেশ্য হল শুধুমাত্র কিছু নিউজ, কিছু সাহিত্য, কিছু রেসিপি এসব নিয়ে কাজ করা নয়, আগামি দিনে নতুন কিছু করার তাগিদ রয়েছে আমাদের। সামাজিক দ্বায়বদ্ধতা, মানবিকতা ও মূল্যবোধের তাগিদে সমাজের অবহেলিত দুঃস্থ মানুষদের পাশে থাকা ও তাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়াও আমাদের লক্ষ্য। আগামী দিনে রয়েছে আরও নানান পরিকল্পনা, ধীরে ধীরে সেগুলো চেষ্টা করব বাস্তবায়নে। সর্বপরি আপনাদের ভালোবাসা আর আর্শীবাদ আমাদের চলার মূল চালিকা শক্তি, এগিয়ে যাওয়ার প্রেরনা। পুনরায় কৃতজ্ঞতা জানাই সকল মানুষকে। পাশে থাকুন, সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন সবাই। জয় হিন্দ।
।।সহ সম্পাদক, সব খবর।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here