সাহিত্য জগতের দিশা: দীপায়ন সাহিত্য পত্রিকা।

0
445

হুগলী, রাণা চ্যাটার্জীঃ-এক অনবদ্য সাহিত্য সভার সাক্ষী হলাম গত ৫ই জানুয়ারি ২০২০,চুঁচুড়া পৌরসভার অধিবেশন কক্ষে ।উপস্থিত হয়ে সমৃদ্ধ হলাম শতধিক সাহিত্য অনুরাগী,ভালোবাসার মানুষ জন ও গুণী ব্যক্তিত্বদের সান্নিধ্য। “দীপায়ন সাহিত্য পত্রিকা”-র সম্পাদিকা শ্রীমতী করকাশ্রী চট্টোপাধ্যায় , যিনি শিলাবৃষ্টি নামেই সাহিত্য জগতে সমধিক পরিচিত ওনার আন্তরিক আমন্ত্রন,উৎসাহ প্রদান সেই সঙ্গে উল্লেখযোগ্য সাহিত্য অনুরাগী ব্যক্তিত্ব শচিদুলাল পাল ও বিমান পাত্র মহাশয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

গতবছর ১লা জানুয়ারি ২০১৯, যে দীপায়ন সাহিত্য পরিবারের প্রতিষ্ঠা হয় এই বছর প্রবল উৎসাহে শুভাকাঙ্খি ও বিদদ্ধ ব্যক্তি গনের উপস্থিতিতে পূর্ণ হল এক বছর ।দীপায়ন এর জন্মদিন উপলক্ষ্যে ছিল সাজো সাজো রব,কেক কাটা,অতিথি আপ্যায়ন,দারুন আয়োজন সমস্ত কিছুই ছিল মজুত। প্রবল ঠান্ডা মেঘের মুখ ভার উপেক্ষা করেও যেভাবে দূর দুরান্ত থেকে সাহিত্য অনুরাগীরা মাননীয়া শিলাবৃষ্টি মহাশয়ার আমন্ত্রনে এসেছিলেন সামগ্রিক অনুষ্ঠানটি অভিনবত্বের দাবি রাখে।

চুঁচুড়া পৌরসভার অধিবেশন কক্ষে দীপায়ন সাহিত্য পরিবারের বর্ষপুর্তি উৎসব ও দীপায়ন সাহিত্য পত্রিকার জন্মদিন সংখ্যা “দীপায়নের দীপশিখা”র আনুষ্ঠানিক প্রকাশানুষ্ঠান ঘিরে উপস্থিত সকলের উন্মাদনা ছিল নজরকাড়া। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট কবি ও সাংবাদিক শ্রী বরুণ চক্রবর্তী মহাশয়৷ এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন আলোকিত করেছিলেন বিশিষ্ট কবি , নাট্যকার ও বাচিক শিল্পী শ্রী আরণ্যক বসু , বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুঁচুড়া বিধানসভার বিধায়ক শ্রী অসিত মজুমদার , চুঁচুড়া পৌরসভার পৌরপ্রধান শ্রীগৌরীকান্ত মুখার্জি , প্রণব কন্যা সঙ্ঘ , চুঁচুড়ার শ্রদ্ধেয়া রাণীমা , আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের বিভাগীয় প্রধান ডঃ সাইফুল্লা , বিশ্ব বঙ্গ বাংলা সাহিত্য একাডেমির চেয়ারম্যান তথা জনপ্রিয় ‘যুথিকা’ সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক শ্রী সোমনাথ নাগ ,  “এবং লোকায়ত” সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক শ্রী মুরারিমোহন চক্রবর্তী ,”জিরো পয়েন্ট” সাহিত্য আড্ডার সম্পাদিকা শ্রদ্ধেয়া আঞ্জু মনোয়ারা আনসারী।
জনপ্রিয় “পারিজাত সাহিত্য পত্রিকা”র সম্পাদক শ্রী সব্যসাচী নাথ সহ আরো অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব । উপস্থিত ছিলেন শ্রদ্ধেয় কবি প্রবীর চৌধুরী মহাশয়,বাচিক শিল্পী রনিতা মল্লিক,ডেলিহান্ট সবখবর এর অন্যতম প্রতিনিধি ও সাহিত্যিক রাণা চ্যাটার্জী সহ আরো অনেক অনেক স্বজন সাথী।

এই অনুষ্ঠানেই প্রকাশিত হল দীপায়ন সাহিত্য পত্রিকার সভাপতি শ্রীমতী বলাকাশ্রী চক্রবর্তী পাহাড়ীর প্রথম কাব্যগ্রন্থ “সম্পর্ক-সুধার খোঁজে”৷ সম্পাদিকা শিলাবৃষ্টি দিদির প্রগাঢ় আন্তরিকতায় অনুষ্ঠানটি প্রথম থেকেই হয়ে উঠেছিল স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যে সমুজ্জ্বল ৷ অনুষ্ঠানে তেরো জন কবি-সাহিত্যিককে পরিবারের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় সেরা হওয়ার জন্য কপালে চন্দনের ফোঁটা দিয়ে , উত্তরীয় ,সম্মাননা-স্মারক ও পত্রিকার সৌজন্যসংখ্যা দিয়ে সম্মান জানানো হয় । পত্রিকায় যাঁদের লেখা প্রকাশিত হয়েছে সেই সমস্ত গুণী সাহিত্যস্রষ্টাদের অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে কপালে চন্দনের ফোঁটা , মেডেল , উত্তরীয় , সার্টিফিকেট ও সৌজন্য সংখ্যা দিয়ে সম্মান জানানো হয় ৷ উপস্থিত কবিদের স্বরচিত কবিতা পাঠে মুখর হয় অনুষ্ঠান কক্ষ।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে দীপায়ন সাংস্কৃতিক সংস্থা পরিবেশন করেন একটি মনোজ্ঞ সংগীত ও নৃত্যের অনুষ্ঠান ৷ আর একটা কথা বিশেষভাবে বলা প্রয়োজন , কেন “দীপায়ন” সাহিত্য জগতে  এত উজ্জ্বল স্থান এত জলদি অধিকার করে সকল সাহিত্য অনুরাগী মানুষ দের আপন করে নিলো তার কারণ দীপায়ন সাহিত্য পত্রিকা সুস্থ সাহিত্য চর্চার পক্ষে ,আজ কাল সাহিত্য নিয়ে ব্যবসা করা দের কাছে দীপায়ন এক দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী।প্রত্যেক কবি গল্পকার কে বিনামূল্যে সৌজন্য সংখ্যা দেওয়া ছাড়াও দীপায়ন সাহিত্য পত্রিকা যে সম্মাননা দিলো তা এক বিরাট প্রাপ্তি। দীপায়ন বিশ্বাস করে কবি-সাহিত্যিকরা তাঁদের অতিথি , অনাহূত কেউ নন ৷ শিলাবৃষ্টি দিদিভাই যেভাবে পরম আন্তরিকতার সঙ্গে অতিথি আপ্যায়ন করেছেন তা নিঃসন্দেহে সমস্ত প্রশংসার ঊর্ধ্বে ৷বেলা থেকে শুরু হওয়া এই দীর্ঘ অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ,সত্যিকারের ভালো বক্তব্য,নৃত্য অনুষ্ঠান,আবৃত্তি, গান,বই প্রকাশ সব কিছু এত সুন্দর ভাবে কর্মকর্তাদের আন্তরিকতায় প্রাণ পেল ধন্য হলাম উপস্থিত সকল সাহিত্যনুরাগী ও শ্রোতামহল।বলিষ্ঠ কর্মকর্তা শ্রদ্ধেয় শচিদুলাল পাল মহাশয়ের অনুপ্রেরণা মূলক বক্তব্য,যুবসমাজ কে সুস্থ সাহিত্য সচল রাখতে কলম ধরার আহবান মুদ্রিত পত্রিকা হোক আর অনলাইন ব্লগে লিখতে উৎসাহ দিলেন। খুব সুন্দর ভাবে বোঝালেন অনলাইন পত্রিকার একটা লেখা বছরের পর  বছর বা আগামীতেও পাঠক চাইলে পড়তে পারেন।এগিয়ে চলুক দীপায়ন  এমন সুন্দর ভাবেই সাহিত্য অনুরাগীদের দিশা দেখিয়ে।সব শেষে শিলাবৃষ্টি  মহাশয়াকে আর এক বার ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানাই এত সুন্দর ভাবে সবাই কে নিয়ে চলার ,মানসিক বন্ধনে সাহিত্যকে ভালোবাসায় পথ দেখানোর জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here